কেশপুরে অধ্যাপকের রহস্যমৃত্যুর জের! গ্রেফতার স্ত্রী ও শ্বশুর

0 1

তারক হরি, পশ্চিম মেদিনীপুর: অধ্যাপকের রহস্যমৃত্যুর পরেই পরিবারের তরফে দায়ের করা খুনের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হলো অধ্যাপকের স্ত্রী ও শ্বশুর মশাইকে। বুধবার ধৃতদের তোলা হলো মেদিনীপুর জেলা আদালতে। প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার ভোরে কেশপুর থানার অন্তর্গত আন্দিচক গ্রামে অস্বাভাবিক ভাবে মৃত্যু হয় নাড়াজোল রাজ কলেজের এডুকেশন বিভাগের অধ্যাপক প্রতিম মাইতির। মঙ্গলবারই তাঁর ছেলেকে খুন করা হয়েছে বলে কেশপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মৃত অধ্যাপকের মা পারুল মাইতি। মাত্র পনেরো দিন আগেই ডেবরার শালকুঠী গ্রামের বাসিন্দা ইঞ্জিনিয়ার ব্রততীর সাথে ম্যাট্রিমনিয়াল সাইটের মাধ্যমে দেখাশোনা করেই বিয়ে হয়েছিল অধ্যাপক প্রতিমের।

পরিবারের লোক দাবি করেছেন, প্রতীমের স্ত্রী আধুনিক মনোভাবাপন্ন নারী। বিয়ের পর শাড়ি না পড়ে সালোয়ার কামিজ পড়তে চায় । গ্ৰাম্য পরিবেশে মানিয়ে নিতে অস্বীকার করে। এই ছোটখাটো সমস্যাগুলো থেকেই বৈবাহিক জীবনে মনোমালিন্য শুরু হয়। সেই রাগের বশে বৌমাই শ্বাসরোধ করে তাঁর ছেলেকে খুন করেছে এমনই গুরুতর অভিযোগ এনেছেন পারুল দেবী।

সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হয় অধ্যাপকের স্ত্রী ব্রততী মাইতি, এবং শ্বশুর অর্থাৎ ওই নববধূর বাবা সুভাষ দেকে।
তবে কিভাবে অধ্যাপক মারা গেলেন, তা নিয়ে রীতিমতো দ্বন্দ্বে পুলিশ। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসার পরেই গোটা বিষয়টি পরিষ্কার হবে বলে জানা গিয়েছে জেলা পুলিশ সূত্রে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: