‘হাম্পি দাম্পি করে ব্রিগেড কাঁপাচ্ছে ‘টুম্পা সোনা’

রামকৃষ্ণ চ্যাটার্জী: গত পুজোয় মাঠ কাঁপিয়েছিলো টুম্পা সোনা ৷ সেই টুম্পা সোনা ঘর ছেড়ে এবার ঝড় তুললো বামফ্রন্ট ব্রিগেডে ৷ সমাবেশের প্রচার গানে জায়গা করে নিল ‘টুম্পা সোনা।’ শুক্রবার সন্ধের পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল ‘টুম্পা সোনা’ গান ৷

গানের কথা বদলে দিয়ে সরাসরি মমতা ও মোদিকে আক্রমন করা হয়েছে। আবার নারদ কাণ্ড ও সদ্য গেরুয়া শিবিরে সামিল হওয়া রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদেরও কড়া সমালোচনা করা হয়েছে। প্রশ্ন উঠছে, এবার কি টুম্পার কাঁধে ভর করে ভোট বৈতরণী পার হতে চাইছে বামেরা! তবে কি রাজ্যের মহিলা ভোট ব্যাংকের দিতে নজর বাম ব্রিগেডের ৷

“টুম্পা তোকে নিয়ে ব্রিগেড যাব চেন ফ্ল্যাগে মাঠ সাজাবো” এমন লিরিকে সুর বেঁধে ২৪ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড যাওয়ার ডাক দিয়েছেন সিপিএমের ইয়াং ব্রিগেড। সোশ্যাল নেটওয়ার্কে ইতিমধ্যেই কার্টুন ছবির সঙ্গে টুম্পা সোনা গানের লিরিকে বাঁধা এই ব্রিগেড ভরানোর আবেদনটি ভাইরাল হয়েছে। বরাবরই কুলীন রাজনৈতিক আদর্শে বিশ্বাসী ও বাজারচলতি স্লোগান থেকে ঘোষিত ভাবে দূরে থাকা বাম কর্মী সমর্থকদের এহেন টুম্পাপ্রীতিতে অবাক অনেকেই।

জনপ্রিয় ও বাজারচলতি টুম্পা সোনা গানের সুরে চটকদার লিরিক বসিয়ে ব্রিগেড যেতে চাইছেন সিপিআইএমের তরুণ তুর্কিরা। তাহলে কি দলের পাকা চুল ও বয়স্ক কমরেডদের নিয়ন্ত্রণ কমছে দলের উপর? এই প্রশ্নই মাথাচাড়া দিচ্ছে সর্বত্র। চটুল গানে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি উভয়কেই আক্রমণ করে টুম্পাকে নিয়ে ব্রিগেডে যাওয়ার ডাক দেওয়া হয়েছে এই গানে। অন্যান্য ডানপন্থী দলের রাজনৈতিক অবস্থান ও স্লোগান নিয়ে বরাবর সমালোচনা করে থাকা এসএফআই ও ডি ওয়াই এফ আই কর্মীরা কিভাবে এমন চটুল ও চটকদার গানের মাধ্যমে ব্রিগেড যাওয়ার আবেদন জানালেন তা নিয়েই সর্বত্র শুরু হয়েছে শোরগোল।




%d bloggers like this: