দ্বিতীয় তারাপীঠ মন্দিরের উদ্বোধন হল পূর্ব মেদিনীপুরে

সন্ন্যাসী কাউরী, পাঁশকুড়া: দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে খুলে দেওয়া হল পাঁশকুড়ায় নবনির্মিত দ্বিতীয় তারাপীঠ মন্দিরের দ্বার।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া ব্লকের চকগোপাল গ্ৰামের কয়েকজন উৎসাহী যুবকের উদ্যোগে শুরু হয় তারা মায়ের মন্দির নির্মাণের কাজ।

প্রায় ৮০ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট মন্দির নির্মাণের জন্য খরচ হয় কয়েক কোটি টাকা। মন্দিরের পাশে তৈরি করা হয়েছে বাবা বামদেবের আশ্রম। ছয় একরেরও বেশি জায়গা জুড়ে তৈরি হওয়া এই মন্দিরের দ্বারোঘাটন হল মঙ্গলবার।

এদিন অমাবস্যা তিথিতে সমস্ত আচার মেনে আহুতি ও যাগযজ্ঞ করে দেবীর মূর্তি ও প্রাণ প্রতিষ্ঠা করা হয়। ২৭ জন পুরোহিতের উপস্থিতিতে চলে হোম যজ্ঞ।

তারাপীঠ থেকে নিয়ে আসা হয় মাটি প্রজ্জ্বলিত প্রদীপ । রূপোর চূড়ায় মোড়া কোষ্ঠী পাথরের মায়ের মূর্তি দর্শন করতে দর্শনার্থীদের ৫১ ধাপ সিড়ি ভেঙে পৌঁছতে হবে মায়ের গৃহে।

প্রথম দিন থেকেই উপচে পড়ছে দর্শনার্থীদের ভিড়। পূণ্যার্থী ও দর্শনার্থীদের যাতে কোনো অসুবিধা না হয় সে ব্যবস্থা করবেন মন্দির কর্তৃপক্ষ।

মূলত প্রভঞ্জন দোলই এবং সিদ্ধার্থ চক্রবর্তীর অতি উৎসাহে ও উদ্যোগে এই মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু হয়। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার প্রত্যন্ত গ্ৰামে তারাপীঠের আদলে তৈরী মন্দির সাড়া ফেলেছে দুই মেদিনীপুর জেলায়।

এই মন্দির কে কেন্দ্র করে গড়ে উঠবে দোকান বাজার, মানচিত্রে স্থান পাবে অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে, এমনটাই মনে করছেন এলাকাবাসী। মেদিনীপুর জেলার গুরুত্ব বাড়াতে পারে এই নব নির্মিত মন্দির ।




%d bloggers like this: