মাটি খুড়তেই মিলছে গুপ্তধন ! এলাকাবাসীর জোর তল্লাশি

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজব ঘটনা! মধ্যপ্রদেশে নদীর পাড়ে নাকি মিলছে সোনা-রুপোর কয়েন। মধ্যপ্রদেশের এই রাজগড়ে পার্বতী নদীর ধারে স্থানীয় বাসিন্দাদের ভিড় দেখার মতো। সোনা-রুপোর কয়েনের কথা শোনা মাত্রই চলছে নদীর পাড়ে জোরদার খোঁড়াখুঁড়ি।

আর তারপর থেকেই চলছে জোর তল্লাশি, আবার কেউ সেখানে রয়ে গিয়েছেন। শিবপুরা ও গরুড়পুরা গ্রামের বাসিন্দারা গত ৩ দিন ধরে পার্বতী নদীর ধারেই তাঁবু খাটিয়ে বসবাস শুরু করে। আসল সোনা-রুপোর কয়েনের কথা শোনা মাত্রই তাই হামলে পড়েন সকলে।

উক্ত এই ঘটনার সূত্রপাৎ হয়েছিল ৮ দিন আগে। জানা যায়, স্থানীয় কয়েকজন মৎস্যজীবী পার্বতী নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে নদীর পাড় থেকে খুঁজে পেয়েছিলেন পুরনো কিছু মুদ্রা। সেই খবর প্রচার হতেই দলে দলে আশপাশের গ্রামের বাসিন্দারা ভিড় জমান নদীর ধারে।

গুপ্তধন পাওয়ার আশায় শুরু হয় নদীর ধরে তল্লাশি। নদীর পাড়ে চলে দিনরাত মাটি কোপানো। শেষমেশ এতো বেশি উত্তেজনার সৃষ্টি হয়, যে শেষে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। সেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করে স্থানীয় প্রশাসন।

এ বিষয়ে রাজগড়ের পুলিশ সুপার প্রদীপ শর্মা বলেন, ”ওই এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি যাতে ঠিক থাকে, আমরা সে বিষয়ে খেয়াল রাখছি। সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার বিষয়টাও নজরে রাখা হচ্ছে। পাশাপাশি মানুষদের বোঝানো হচ্ছে গুজবে কান না দিতে।”

এই কয়েন পাওয়াটাকে গুজব বলেই মনে করছেন প্রদীপ শর্মা। পাশাপাশি রাজগড়ের কালেক্টর নীরজ কুমার জানান, ”পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। কিছুদিন আগে নদীর ধারে কয়েকটি প্রাচীন মুদ্রা খুঁজে পান স্থানীয় কয়েকজন মৎস্যজীবী। এরপরই গুপ্তধনের গুজব ছড়িয়ে পড়ে। মুদ্রাগুলি পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে সেগুলি ব্রোঞ্জ ও লোহার তৈরি।”




%d bloggers like this: