‘ঘরের বৌ সামলাতে পারে না, সে তৃনমূলের সঙ্গে লড়বে কি করে’ : সৌমিত্রকে কটাক্ষ করলেন রাজ্য যুব তৃণমূল মুখপাত্র সুদীপ রাহা

শান্তনু রায়, পশ্চিম মেদিনীপুর: বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে ততই চড়ছে পারদ। কেউ এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়তে রাজি নয়। পিছিয়ে নেই বিরোধী থেকে শাসক দল। বিজেপির অপপ্রচার, কুৎসা ও মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করল আলিকষা ১ নং অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেস। শুক্রবার দাঁতন ১ ব্লকের আলিকষা গ্রাম পঞ্চায়েতের দেউলীতে সভার আয়োজন করা হয়।

বেশ কয়েকদিন আগে দেউলীতে সভা করে বিজেপি। যেখানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁ, সমিত দাসেরা। তৃণমূলের এদিনের প্রতিবাদ সভা তারই পাল্টা সভা বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। প্রতিবাদ সভা থেকে কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতি সহ বঞ্চনার কথা তুলে ধরে বিজেপিকে আক্রমণ শানান উপস্থিত নেতৃবৃন্দ।

কৃষি আইনের বিরোধিতা করা হয় প্রতিবাদ সভায়। রাজ্যের নানান উন্নয়নমূলক প্রকল্প সহ উন্নয়নের নানান দিক তুলে ধরেন বক্তারা। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তৃতীয় বারের জন্য রাজ্যে তৃণমূলকে জেতানোর আহ্বান জানান হয় প্রতিবাদ সভায়। এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন দাঁতনের বিধায়ক বিক্রম চন্দ্র প্রধান, কেশিয়াড়ীর বিধায়ক পরেশ মুর্ম্মূ, প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র সুদীপ রাহা, জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র দেবাশীষ চৌধুরী, দাঁতন ১ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি প্রতুল দাস, জেলা এস টি সেলের সভাপতি ভদ্র হেমব্রম, অলিকষা ১ নং অঞ্চল তৃনমূল কংগ্রেসের সভাপতি ধীরেন জান,সহ অনেকে।

এদিনের এই সভাতে রাজ্য যুব তৃনমূলের মুখপাত্র সুদীপ রাহা তার বক্তব্যে বিজেপির রাজ্য যুব সভাপতি সৌমিত্র খাঁ ও সদ্য তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে তীব্র আক্রমন করেন। তিনি সৌমিত্র খাঁ সম্পর্কে বলেন, যে ঘরের বৌ সামলাতে পারে না, সে তৃনমূলের সঙ্গে লড়বে কি করে।তার এই আক্রমন থেকে বাদ যায়নি শুভেন্দু অধিকারিও। শুভেন্দু অধিকারীর নিরাপত্তা প্রসঙ্গে বলেন এদিন যে আমাদের বিধায়কদের কোনও সি আই এস এফ লাগে না। মঞ্চ থেকে শুভেন্দুকে জানান তৃনমূলের এই মুখপাত্র যে সি আই এস এফ ছাড়া দাঁতনে এসে সভা করে দেখাক।তিনি আরও বলেন যে দলের নেতারা নয়, বুথের কর্মী, অঞ্চলের কর্মীদের নিয়ে তূনমূল দল।তাদের উপরেই আস্থা রেখেছে দল। ফলে যারা দল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন তারা সব নেতা। এদিনের এই সভার শুরুর আগে কর্মী সমর্থকরা পা মেলায় মিছিলে।




%d bloggers like this: