রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার জল্পনা ওড়ালেন ‘দাদা’

নিজস্ব সংবাদদাতা,কলকাতা: দাদা’কে নিয়ে রাজনৈতিক জল্পনা অনেকদিনের। ইনি রাজনৈতিক ‘দাদা’র অনুগামীদের ‘দাদা’ নন। ইনি হলেন বাংলার এবং সবার প্রিয় দাদা সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। দাদা রাজনীতিতে যোগ দেবেন কিনা এ নিয়ে সবার মধ্যেই জোর জল্পনা। আর সেখানে ইন্ধন জুগিয়েছে রবিবার বিকেলে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে তাঁর ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’। অন্যদিকে আজ একই মঞ্চে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে একই মঞ্চে থাকতে পারেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। আর সেটা নিয়ে এবার ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করতে শোনা গেল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি জানালেন, বিজেপিতে ‘ভালো’ লোকেদের আহ্বান জানাচ্ছে গেরুয়া শিবির।

এদিকে সৌরভের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্নের জবাবে সোমবার দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ এ বিষয়ে আমার কিছু জানার নেই। তিনি কী করবেন, কী না করবেন। সেটা তাঁর বিষয়। তিনি আমাদের সম্মানীয় ব্যক্তি। বাংলার গর্ব। আমাদের ক্যাপ্টেন ছিলেন তিনি।’ এদিন রাজ্যপালের সঙ্গে সৌরভের বৈঠক নিয়ে দিলীপ ঘোষকে প্রশ্ন করা হলে, ‘রাজ্যপালের সঙ্গে সৌরভের বৈঠক নিয়ে এত জল্পনার কী আছে?’ তার সঙ্গে যোগ করেন, এইমুহুর্তে পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক অবস্থা খুব শোচনীয়। তাই ‘ভালো’ লোকেদের বিজেপিতে আসতে বলা হচ্ছে। দিলীপের কথায়, ‘অবশ্যই তাঁর মতো সফল ব্যক্তিদের রাজনীতিতে আসা উচিত।’ দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যই যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহল।

এর আগে বিধানসভা নির্বাচনের আগেও রাজনৈতিক মহলে অনেকবার সৌরভের নাম উঠে এসেছিল। এমনকী সৌরভকে বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী করা হতে পারে বলে শুরু হয়েছিল জল্পনা। যদিও বঙ্গ সফরে এসে সেই প্রশ্নের জবাবে অমিত শাহ জানিয়েছিলেন, মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীর তালিকায় অনেকের নামই আছে। সেটা খুব একটা ছোটো নয়। তাই সৌরভের সম্ভাবনাও খারিজ করে দেননি শাহ। কিন্তু তার আগে অবশ্য মহারাজের ৪৮ তম জন্মদিনে সৌরভের স্ত্রী ডোনার ইঙ্গিতবহ মন্তব্য সেই জল্পনায় ঘি ঢেলে দিয়েছিল জোর। রাজ্য বিজেপির ‘মুখ’ হয়ে উঠবেন কিনা সৌরভ, সেই প্রশ্নের জবাবে ডোনা জানিয়েছিলেন, সৌরভ যে পিচেই খেলেন, সেখানেই শীর্ষে থাকেন। রাজনীতিতে যোগ দিলে সেখানেও সৌরভ যে ‘শীর্ষে’ থাকবেন আশাপ্রকাশ করেছিলেন ডোনা। একইসঙ্গে তিনি জানিয়েছিলেন, সৌরভ রাজনীতিতে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিনা, সে বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। তারপর দুর্গাপুজোর ষষ্ঠীর সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর অনুষ্ঠানে পারফর্ম করেছিলেন ডোনা। তাতে আরও বাড়ে জল্পনা।

প্রসঙ্গত এসবের মধ্যেই রাজ্যপালের সঙ্গে রবিবার বিকেলে দু’ঘণ্টা বৈঠক করেন সৌরভ। তার রেশ ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় অরুণ জেটলির মূর্তি উন্মোচনে একই মঞ্চে সৌরভ এবং শাহ উপস্থিত থাকবেন। যা বাড়িয়েছে জল্পনা।

তবে এ প্রসঙ্গে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় জানান, ‘শুধু শুধু আমাকে নিয়ে জল্পনা করা হচ্ছে। এখানে জল্পনা করার মতো কোনও খবরই নেই। একটা মানুষ কি সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে পারে না? দিল্লিতে যাচ্ছি ডিডিসিএ-র অনুষ্ঠানে। সেখানে অনুষ্ঠানে অমিত শাহ থাকবেন। সৌরভ আরও বলেন, ‘ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে অরুণ জেটলির মূর্তি বসবে। এটা দিল্লির ক্রিকেট বোর্ডের অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দিল্লি যাচ্ছি। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সে অনুষ্ঠানে থাকবেন এর মধ্যে জল্পনা করার কোনও প্রশ্নই উঠছে না। আরও অনেকেই থাকবেন অনুষ্ঠানে।’
এছাড়া দিল্লিতে আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার কথা প্রাক্তন দুই ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ ও গৌতম গম্ভীরের।

আমন্ত্রিতদের তালিকায় রয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজিজু, হরদীপ সিং পুরী, অনুরাগ ঠাকুর। দিল্লি এন্ড ডিস্ট্রিক্ট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা ডিডিসিএ-র দীর্ঘদিনের চেয়ারম্যান পদে থাকা অরুণ জেটলির একটি মূর্তির উন্মোচন হবে। এই অনুষ্ঠান শেষ করে রাতেই কলকাতায় ফেরার কথা সৌরভের।

বেশ অনেকদিন ধরেই সৌরভের রাজনৈতিক যোগদান নিয়ে কথা শুরু হয়েছিল। তবে সৌরভ রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে জানিয়ে দেন, পুরোটাই ছিল সৌজন্য সাক্ষাৎ। অন্যদিকে সূত্রের খবর অনুযায়ী, কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও একটি সাংস্কৃতিক কমিটির বিচারক হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার প্রস্তাব সৌরভকে দেওয়া হয়েছে। সেই সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে সৌরভের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে রাজ্যপালের। এছাড়াও কিছু ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে সৌরভ কথা বলেন রাজ্যপালের সঙ্গে। কিন্তু এই দু ঘণ্টা বৈঠকে কোনও রাজনীতির প্রসঙ্গে আলোচনা হয়নি বলেই খবর। আগামী সপ্তাহে রাজ্যপালকে ইডেনে আসার জন্য আমন্ত্রণ জানান সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।




%d bloggers like this: