মানিকতলার ব্যাটারি কারখানায় আগুন, চলছে উদ্ধারকাজ

কলকাতা: আজ দুপুরে মানিকতলার এক ব্যাটারির গুদামে লাগল বিধ্বংসী আগুন। দাউ দাউ করে এখনও জ্বলছে আগুন। প্রায় যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আগুন নেভানোর কাজ কর দমকলকর্মীরা। ঘটনাস্থলে এই মুহুর্তে রয়েছে দমকলের ১০টি ইঞ্জিন। সেখানে পৌঁছেছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। ভীষণ ঘিঞ্জি বসতি এলাকার মধ্যে তৈরি হওয়ায় কারখানা থেকে আগুন ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে। যার ফলে চরম আতঙ্কের মধ্যে সময় গুনছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এছাড়া ঘটনাস্থলে পৌছে গেছে বড়তলা থানার বিশাল পুলিশবাহিনী।

দমকল সূত্রে খবর, এই গোডাউনে প্রচুর পরিমাণে গাড়ির পুরনো ব্যাটারি মজুত করা ছিল। যার জেরেই এই আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আজ বুধবার দুপুর ১২টার সময় প্রথম কারখানা থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়। সেই কথা ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই খবর দেওয়া হয় দমকলে।কিন্তু কারখানা এবং সংলগ্ন গুদামে প্রচুর পরিমাণে দাহ্য পদার্থ মজুত থাকায় নিমেষের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশে। দ্রুত খবর পাওয়ার পর প্রথমে দমকলের পাঁচটি গাড়ি এসে পৌঁছয়। কিন্তু এতে আগুন নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। যার ফলে এরপর আরও একে একে ১০টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। বর্তমানে দমকলের ১০টি ইঞ্জিন আগুন নেভানোর কাজ করছে। আগুন আপাতত নিয়ন্ত্রণে। তবে কোথাও কোনও পকেট ফায়ার আছে কিনা, সেটা খতিয়ে দেখছেন দমকলের আধিকারিকরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, আগুন লাগার পরে দু’জন কারখানার কর্মী গোডাউনের ভেতরে আটকে পড়েছিলেন। তাঁদের কোনওরকমে উদ্ধার করে হয়েছে।

এই বিষয়ে উত্তর কলকাতার ডিভিশনাল ফায়ার অফিসার অসীম সরকার বলেন, “আগুন কী করে লাগল, সেটা স্পষ্ট নয়। তবে কোনও হতাহতের খবর নেই। কিন্তু কারখানায় নিয়মিত আগুন নিয়ে কাজ হলে, কোনওরকম ফায়ার সেফটি বা অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা নজরে পড়েনি। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।”




%d bloggers like this: