নন্দীগ্রাম সভায় যাচ্ছেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, কটাক্ষ করলেন দিলীপ ঘোষ

নিজস্ব সংবাদদাতা,কলকাতা: নতুন বছরের গোড়ার দিকে ৭ জানুয়ারি নন্দীগ্রামে সভা করার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু সভায় যাচ্ছেন না মমতা, সেই সভার নতুন দিন জানাবে তৃণমূল কংগ্রেস।

নন্দীগ্রামের তেখালিতে আগামী ৭ জানুয়ারি তৃণমূলের সভায় উপস্থিত থাকার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর৷ এরকমই জানিয়েছিলেন দলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কো-অর্ডিনেটর অখিল গিরি৷ দলনেত্রী না যাওয়ায় ৭ তারিখের সভা বাতিল করা হচ্ছে বলে তথ্যসূত্রে খবর৷ এদিন তাঁর বদলে সুব্রত বক্সি, ফিরহাদ হাকিমরা সকালে নন্দীগ্রামে গিয়ে শহিদদের শ্রদ্ধা জানাবেন৷

তৃণমূলনেত্রী নন্দীগ্রামে ৭ তারিখ জনসভা করার কথা ঘোষণা করেছিলেন, তার পাল্টা এক সভা করার কথা জানিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী ৮ জানুয়ারি৷ মমতার সভা বাতিল হয়ে যাওয়ায় শুভেন্দুও সভা করেন কি না, এখন সেটাই দেখার৷
অন্যদিকে নন্দীগ্রামে ৭ জানুয়ারির মমতার সভা বাতিল করা নিয়ে দিলীপ ঘোষ মন্তব্য করলেন, এখন অনেক জায়গায় যাওয়া বন্ধ হবে।

নন্দীগ্রামের তৃণমূল নেতা শেখ সুফিয়ান জানিয়েছেন, ওই সভায় অংশ নেবেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি সুব্রত বক্সি। নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রী কবে যাবেন সেটা অবশ্য এখনও ঠিক হয়নি। আর এই কথা প্রকাশ্যে আসতেই কটাক্ষ করতে ছাড়ছে না বিরোধী দল।

সভা বাতিল প্রসঙ্গে শেখ সুফিয়ান বলেন, ‘৭ তারিখ মুখ্যমন্ত্রী সভা করবেন বলেছিলেন কিন্তু কিছু কারণবশত সেটা পিছিয়ে গিয়েছে। দিদি পরের তারিখ জানিয়ে দেবেন। তবে তিনি আশ্বাস দিয়েছেন যে জানুয়ারি মাসেই সভা করবেন নন্দীগ্রামে। আর সেটা হবে তেখালির মাঠে। সেদিন প্রায় আড়াই লক্ষ থেকে তিন লক্ষ মানুষের জমায়েত হবে সেখানে। তিনটি মঞ্চ করা হবে বলে ঠিক করা হয়েছে।’‌

এই শুনেই কটাক্ষ করেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি এদিন বলেন, ‘৮ তারিখ আমরা সভা ডেকেছিলাম সে কারণেই যাচ্ছেন না তিনি। অনেক জায়গায় যাওয়া বন্ধ হয়ে যাবে এবার। যা হবে কালীঘাটেই হবে।’‌

প্রসঙ্গত, তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। এতদিন তৃণমূলের হয়ে ৭ জানুয়ারির শহিদ দিবস শুভেন্দুই পরিচালনা করতেন। কিন্তু এখন যেহেতু তিনি তৃণমূল শিবির ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছেন তাই মুখ্যমন্ত্রী ঠিক করেন যে এবার তিনি হাজির থাকবেন শহিদ দিবসের অনুষ্ঠানে। তথ্য সূত্রে খবর, শুভেন্দুর গড়ে দাঁড়িয়ে তাঁকে বার্তা দেওয়ারও পরিকল্পনা ছিল মমতার। কিন্তু সেই সভা আপাতত পিছিয়ে গিয়েছে। তবে ৮ তারিখ সেখানে সভা করবেন শুভেন্দু অধিকারী–সহ অন্য বিজেপি নেতারা।

২৩ ডিসেম্বর কাঁথিতে এক রোড শো ও সভা করে তৃণমূল কংগ্রেস৷ সেদিন রামনগরের বিধায়ক ও জেলা তৃণমূলের কো অর্ডিনেটর অখিল গিরিকে নিয়ে নন্দীগ্রামে তৃণমূলনেত্রী ৭ জানুয়ারি সভা করবেন বলে জানিয়েছিলেন৷ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী তথা তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা সুব্রত মুখোপাধ্যায় জানালেন, রামনগরের বিধায়ক অখিল গিরি কোভিড পজিটিভ। তাঁকে ছাড়া নন্দীগ্রামে সভা করার কথা ভাবাই যায় না।

তাই এই কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘অখিল গিরিকে বাদ দিয়ে নন্দীগ্রামের কর্মসূচিতে যাওয়া এখনও আমাদের দলের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই এটা জানিয়ে রেখে আমরা নন্দীগ্রামের মানুষের কাছে দুঃখপ্রকাশ করলাম আমরা। তবে নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর যাওয়ার যে কর্মসূচি তা বহাল থাকছে। শুধু তারিখটা পরিবর্তন হবে। প্রসঙ্গত, আয়োজক অখিল গিরি করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। তিনি সুস্থ হলেই সভা করা হবে নন্দীগ্রামে।’‌




%d bloggers like this: