একুশের ভোটের প্রস্তুতি নিতে ডিএমদের সাথে নির্বাচন কমিশনের বৈঠক শুক্রবার

কলকাতা: ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতিতে কোনও ফাঁক যাতে না থাকে, তার লক্ষ্যে শুক্রবার বৈঠক বসছে। রাজ্যের সব জেলার ডিএমদের নিয়ে বৈঠকে বসবেন নির্বাচন কমিশনের সিইও।

ক্রমশ নির্বাচন নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের আবহাওয়া উত্তপ্ত হতে শুরু করেছে। একদিকে করোনা ভাইরাস, আর একদিকে নির্বাচন। দুটো দিক সামলাতে বেশ হিমশিম খাচ্ছেন কর্মকর্তারা। এই পরিস্থিতির মধ্যে পিছিয়ে রয়েছে ভোটের প্রচার, প্রস্তুতিও সেভাবে শুরু হয়নি। নির্বাচন কমিশনের আধিকারিকদের মতে, রাজ্যের ভোট প্রস্তুতি পিছিয়ে আছে। আর সে জন্যেই শুক্রবার এই নিয়েই প্রথম দফার বৈঠক হতে চলেছে। এই বৈঠকে সিইও ছাড়াও আধিকারিকরা থাকবেন। সূত্রের খবর, বৈঠক হবে মধ্য কলকাতার একটি বণিকসভা হলে।

ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ নিয়ে এর আগে নির্বাচন কমিশন রাজ্যের সব জেলার জেলাশাসকদের নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠক করে নিয়েছে। তবে শুক্রবারে বৈঠকে সকলেই উপস্থিত থাকছেন। যার মধ্যে ভোটার তালিকা সংশোধনের থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু হতে চলেছে ভোট প্রস্তুতি। প্রশাসনিক আধিকারিকদের এমনটাই মত।

মূলত শুক্রবারের ভোটে আলোচনা হবে বুথ, ভোট কর্মী, পরিবহণ, নিরাপত্তা, এবং সর্বশেষে ভোট যন্ত্র বস্তুত ভোট আয়োজনের নানা খুঁটিনাটি নিয়ে। সারাদিন ধরেই চলবে এই বৈঠক। সূত্রের খবর অনুযায়ী, সকাল ১১ টা থেকে বৈঠক শুরু হয়ে দুপুর পর্যন্ত তারপর কিছুক্ষণ বিরতি থেকে আবার দ্বিতীয়ার্ধে ও বৈঠক চলবে। সে ক্ষেত্রে শুক্রবারের বৈঠকে শেষ লোকসভা নির্বাচনে কোন জেলায় কাজ করতে গিয়ে কোনও সমস্যা হলে সেই প্রসঙ্গ নিয়েও আলোচনা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

করোনা পরিস্থিতিতে ভোট কীভাবে নেওয়া যেতে পারে শুক্রবারের আলোচনাতে সেই সংক্রান্ত প্রশ্ন উঠতে পারে বলেই অনেকের ধারণা। অর্থাৎ ভোটের ক্ষেত্রে কী কী স্বাস্থ্যবিধি করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন জেলাশাসকরা। এক্ষেত্রে শুক্রবার সশরীরে বৈঠকের প্রয়োজনীয়তা কেন হল মনে করা হচ্ছে সামনাসামনি বৈঠকে আলোচনা অনেক বেশি ভালোভাবে করা যায় এবং মতের আদান-প্রদান হতে পারে তার জন্যই সামনাসামনি আলোচনাকেই গুরুত্ব দিতে চাইছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন যাতে সুষ্ঠুভাবে হয়, তাই আর সময় নষ্ট না করে প্রস্তুতিতে এবার বেশি করেই এদিকে মন দিতে চাইছেন নির্বাচন কমিশন।




%d bloggers like this: