ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত পাক প্রধানমন্ত্রীর ,ধর্ষন করলে পুরুষাঙ্গ অকার্যকর করে দেওয়ার রায়

শ্রীশা চৌধুরী,নিজস্ব সংবাদদাতা: ধর্ষনের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিল পাকিস্তান ৷ ধর্ষণের ঘটনায় কঠোর করা হয়েছে পাক আইন ৷ রাসায়নিক প্রয়োগের (‘কেমিক্যাল কাস্ট্রেশন’) মাধ্যমে পুরুষাঙ্গ অকেজো করে দেওয়ার ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাক মন্ত্রিসভা ৷ প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এতে পুরেপুরি সম্মতি জানিয়েছেন ৷ মঙ্গলবার এ ব্যাপারে অনুমোদন মিলেছে ৷ খবর পাক সংবাদমাধ্যম জিও টেলিভিশনের ৷

পাক স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, ধর্ষনের মামলাগুলির বিচার করা হবে ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে৷ বিচারপ্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করতেই এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে ৷ সাবেকি বিচারপ্রক্রিয়াতে অপরাধীদের শাস্তি পেতে অনেক সময়ক্ষেপন করা হয় ।

তবে সরকারিভাবে এই রায়ের কোনো ঘোষণা দেয়া হয়নি ৷ শাসকদল তেহরিক-ই-ইনসাফের সেনেটর ফয়জল জাভেদ খান টুইটার হ্যান্ডেলে জানিয়েছেন, “এই নতুন ধর্ষন আইনটিক খসড়া অনুমোদনের জন্য দ্রুতই পাক পার্লামেন্টে উপস্থাপন করা হবে ৷”

এই সপ্তাহে ইসলামাবাদে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক বসে ৷ সেখানে ধর্ষণের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেবার সিদ্ধান্ত নেয়ার দাবী উঠেছিল ৷ ওই ধর্ষন কমাতে একটি অর্ডিন্যান্স জারির খসড়া পেশ করা হয় ৷

ওই খসড়াতে পাকিস্তানি মহিলাদের নিরাপত্তার জরুরী ভিত্তিতে ব্যাবস্থা নেযার দাবী তোলা হয় । এর মধ্যে পুলিশে আরও বেশি সংখ্যায় মহিলা কর্মী নিয়োগ, ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে ধর্ষণের মামলাগুলি দ্রুত সম্পন্ন করা , ধর্ষণের ঘটনার সাক্ষীদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করার কথা উল্লেখ করা হয় ৷ প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়ারও দাবি জানান বেশ কয়েকজন মন্ত্রী।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, নাগরিকদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার বিষয়টিকে গুরুত্ব দেবার নির্দেশ দিয়েছেন ৷ নতুন আইনকে কঠোর ও স্বচ্ছ করতে বলেন তিনি ৷ পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে যাতে ধর্ষিতারা নির্ভয়ে ঘটনার অভিযোগ জানাতে পারেন তার জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ও গোপনীয়তার ব্যাবস্থা রাখার কথাও বলেছেন তিনি ৷




%d bloggers like this: