নারকীয় ঘটনা পদ্মাপারে ,মৃতদেহের সঙ্গে মর্গে যৌনসঙ্গমের দায়ে যুবক গ্রেফতার

শ্রীশা চৌধুরী, কলকাতা : সত্যিই নারকীয়!সহকারি ডোম দিনের-পর-দিন হাসপাতালের মর্গে যৌনসঙ্গম করত যুবতীদের মৃতদেহের সঙ্গে। এমনই এক জঘন্যতম ঘটনা পদ্মাপারে ৷ ঢাকার রাজধানীতে এক হাসপাতালেই ঘটেছে এমন ঘটনা । বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা সাক্ষী রইল এই ঘৃন্যতম ঘটনার।

ঘটনায় সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গের সহকারী ডোম, ২০ বছর বয়সি মুন্না ভগতকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। তাকে জিজ্ঞাসাবাদেই মূল রহস্য বেরিয়ে এসেছে ৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মুন্না ভগত শহিদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল হাসপাতালের মর্গের প্রধান ডোম জতন কুমার লালের ভাগনে ৷ গত ২ বছর ধরে মামার সহকারী হিসেবে মর্গে কাজ করত। বৃহস্পতিবার মুন্নাকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি ৷ চরম নারকীয়তার সাথে সে যুবতীদের মরদেহের সঙ্গে যৌনসঙ্গম করত। সিআইডি-র অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারিনটেন্ড্যান্ট জিসান উল হক জানান, ‘গত বছরের মার্চ থেকেই এই ঘটনা ঘটিয়ে চলেছে অভিযুক্ত। মৃতদের সঙ্গে সঙ্গম, যার পরিভাষা নেকরোফিলিয়া, এক ঘৃণ্য অপরাধ।’ সিআইডি আধিকারিকরা জানান, কিছু হাই ভ্যাজাইনাল সোয়াব-এর নমুনা মেলে সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন দফতরে। এক ই ব্যক্তির শুক্রাণু পাওয়া গিয়েছে মর্গে থাকা একাধিক মৃত যুবতীর শরীর থেকে, দেখা যায় ডি এন এ টেস্ট এ। তদন্তে সামনে আসে, মর্গের একজন ডোম এই অপরাধের সঙ্গে জড়িত। সেই যৌন সঙ্গম করেছে দিনের পর দিন মৃত যুবতীদের মৃতদেহের সঙ্গে।
মৃতদেহর সঙ্গে মর্গে যৌন সঙ্গম হয়েছে অন্তত এমন ৫ টি রাত তদন্তে সামনে এসেছে। এবং সেই সময়ে মুন্না ছাড়া মর্গে আর কেউ উপস্থিত ছিল না। মুন্নাকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তার ডিএনএ টেস্ট করা হয়, পরীক্ষায় দেখা যায় যুবতীদের মৃতদেহে যে শুক্রাণু পাওয়া গিয়েছিল তা মুন্নার।




%d bloggers like this: