২৩৯ কোটি টাকা প্রতারণার অভিযোগে প্রাক্তন সাংসদ গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২৩৯ কোটি টাকার প্রতারণা! অ্যালকেমিস্ট গ্রুপের কর্ণধার প্রাক্তন সাংসদ কেডি সিংকে করা হল গ্রেফতার ৷
আজ দিল্লি থেকে গ্রেফতার করা হল প্রাক্তন সাংসদ কেডি সিংকে। তথ্যসূত্রে খবর তাঁর সংস্থা অ্যালকেমিস্ট আমানতকারীদের কাছ থেকে কয়েক কোটি টাকা তুলেছিল বলে অভিযোগ।

বর্তমানে তাঁর বিরুদ্ধে ২৩৯ কোটি টাকা প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে। এই বিষয়ে গতকাল তাঁকে প্রায় সাড়ে ৬ ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর, আজ তাঁকে ইডির মুখোমুখি হতে হয়।

তার কথাবার্তায় অসঙ্গতি থাকায় আজ প্রিভেনশান অব মানি লন্ডারিং-এর ধারা অনুযায়ী তাঁকে গ্রেফতার করেছে ইডি। প্রসঙ্গত কেডির ওপর নজরদারি চলছে বহুদিন ধরেই। বছর দুই আগে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা তছরূপের অভিযোগে কে ডি সিংয়ের প্রায় ২৩৮ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট৷

আর সেই সময় থেকেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় কে ডি সিংয়ের একাধিক সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা শুরু হয়েছিল৷ কুফরির একটি রিসর্ট থেকে একে একে চণ্ডীগড়ের শো-রুম, পঞ্চকুলা ও হরিয়ানায় একাধিক সম্পত্তি ও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সিজ করা হয় তার৷

অন্যদিকে ২০১৬ সাল থেকে কেডি সিং ও তাঁর সংস্থা অ্যালকেমিস্ট ইনফ্রা রিয়েলিটি লিমিটেডের বিরুদ্ধে তদন্ত চালাচ্ছিল সেবি৷ কেডি সিং ও তাঁর সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে, ২০১৫ সালের চিটফান্ডের মাধ্যমে জনগণের কাছ থেকে তাঁরা অবৈধ ভাবে ১ হাজার ৯১৬ কোটি টাকা তুলেছে৷ এরপর অ্যালকেমিস্ট দাবি করে, ২০১৫ সাল নাগাদ তারা সেবি-কে ১০৭৭ কোটি টাকা ফেরত দিয়েছে৷

এই প্রসঙ্গে কেডির গ্রেফতারি ঘিরে রাজ্য এবং রাজধানীর দুই যুযুধান পক্ষই জোর তরজায় মেতেছে। বিজেপির বক্তব্য তৃণমূল ‘বহিরাগত’ তত্ত্ব নিয়ে সরব তারাই কেডি সিংকে টিকিট দিয়েছিল। অন্য দিকে তৃণমূল নেতা কুনাল ঘোষ বলছেন, কেডিকে অন্য রাজ্য থেকে এই রাজ্যে নিয়ে এসেছিলেন মুকুল রায়। তাই তাঁকেও এই বিষয় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা উচিত।




%d bloggers like this: