দিলীপ ঘোষ হবেন মুখ্যমন্ত্রী : সৌমিত্র খাঁ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিধানসভা নির্বাচনের আগে আরও একবার জল্পনার মধ্যে সৌমিত্র খাঁ। তবে এবার অন্য বিষয়ে। বিজেপির তরফ থেকে কাকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী করা হবে এই নিয়ে সবার মুখে কুলুপ, অথচ সেখানেই মুখ খুললেন সৌমিত্র খাঁ। সোমবার এক সভায় কোনওরকম রাখঢাক না রেখেই জানিয়ে দিলেন, বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী হবেন দিলীপ ঘোষ।

সোমবার পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতনে এক জনসভায় সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে তৃণমূল ভাঙবে। আর মুখ্যমন্ত্রী হবেন দিলীপ ঘোষ। কারণ দিলীপ ঘোষ সংসার করেননি। আমার দৃঢ় বিশ্বাস উনি একদিন মুখ্যমন্ত্রী হবেন। তিনিই চালাবেন রাজ্য।’ তার এই বেফাঁস মন্তব্যে রাজ্য বিজেপির মধ্যে ফের শুরু হল বিতর্ক।
২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীর নাম ঘোষণা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিজেপি।

সৌমিত্রর এই বক্তব্যের পর শুধু জল্পনা বাড়িয়েছেন বিজেপি নেতারা। এদিকে পশ্চিমবঙ্গে নরেন্দ্র মোদীকে মুখ করে নির্বাচনে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি।

তার মধ্যে সৌমিত্র খাঁয়ের মন্তব্য যে বিজেপির সমস্ত পাশার গুটি উলটে দিতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের অনেকেই।

প্রসঙ্গত পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে শোনা যাচ্ছিল অনেকের নাম। তার মধ্যে বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষের নাম তো রয়েছেই, এছাড়াও সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নাম নিয়েও মাঝে মাঝেই তৈরি হয়েছিল জল্পনা। এছাড়াও তাঁদের তালিকায় রয়েছে একাধিক রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের নামও।

তবে এদিন বিজেপির তরফ থেকে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় এলে মুখ্যমন্ত্রী হবেন এখানকারই কোনও ভূমিপুত্র।কাউকেই দিল্লি থেকে চাপিয়ে দেওয়া হবে না।

এদিন দাঁতনের দেউলি গ্রামে বিজেপির যুব মোর্চার সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘শুভেন্দুদার নেতৃত্বে তৃণমূল দল ভেঙে যাবে। দিলীপ ঘোষ বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী হবেন।

মূলত এর আগে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, ‘ এই রাজ্যে একজন বাঙালিই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হবেন।‘ সেদিন সাফ সাফ জানান, রোড শো-এ যে বিপুল পরিমাণ জনপ্লাবন, তাঁরা কেউ বাংলার বাইরের লোক নন। সবাই এই বাংলার লোক। একজন বাঙালিই হবেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

বিজেপি সরকার গড়লে, বাংলার ভূমিপুত্রই হবেন মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপি সরকারের মুখ্যমন্ত্রী কোনও ‘বহিরাগত’ হবেন না। উল্লেখ্য যে, অমিত শাহের এই মন্তব্যের পরেই উস্কে উঠেছিল জল্পনা। বিজেপি জিতলে কে হতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী আর মুখ্যমন্ত্রিত্বের দৌড়েই বা কে কেই বা আছেন? রাজ্য রাজনীতির ভেতর এখন ঘুরপাক খাচ্ছে এই জল্পনাগুলোই।




%d bloggers like this: