সুস্থ সৌরভ গাঙ্গুলী, হাসপাতালে ছুটির ঘন্টা বাজালেন দেবি শেঠি

শ্রীশা চৌধুরী, কলকাতা: বিশিষ্ট কার্ডিয়াক সার্জেন ও হার্ট স্পেশালিস্ট দেবি শেঠি উডল্যান্ডে গিয়ে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় কে পর্যবেক্ষন করেছেন । রবিবার বেলা তিনটে তে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে দক্ষিণ কলকাতার উডল্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি হন অন্যতম সেরা ভারত অধিনায়ক এবং ক্রীড়াবিদ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। গতকালই দেবী শেঠীর সাথে তাদের কথা হয় ভিডিও কনফারেন্সে। সেই সূত্রে আজ কলকাতায় আসেন দেবী শেঠী ৷

সৌরভকে পর্যবেক্ষনের পরই বিশিষ্ট কার্ডিয়াক সার্জন দেবি শেঠী সার্টিফিকেট দেন যে তার হার্টের কন্ডিশন ভালো থাকায় আগামীকাল তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে। তারপর তাকে বিশ্রাম নিতে হবে দুই থেকে তিন সপ্তাহ। তারপর তিনি আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে পুরোদমে কাজ করতে পারবেন। এমনকি চাইলে ক্রিকেট ও খেলতে পারবেন তিনি। একই সঙ্গে কলকাতায় সৌরভের পাওয়া চিকিৎসা পরিষেবা কে ‘সর্বোত্তম’ বলে উল্লেখ করেন দেবি শেঠি।

তিনি বলেন, “সৌরভ গাঙ্গুলি ভালো আছেন। চিকিত্সকদের চিকিত্সায় ভালো রেসপন্স করেছেন তিনি।আগামিকালই তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে। এরপর ২ থেকে ৩ সপ্তাহ তাঁকে বিশ্রাম নিতে হবে। আমি মেডিক্যাল টিমের প্রত্যেকটি চিকিৎসককে কনগ্র্যাচুলেশন জানাি । সৌরভ যদি দেশের অন্য কোনও প্রান্তেও থাকতেন, তাহলেও এখানের থেকে বেশি যত্ন ও সুচিকিৎসা পেতেন না। কোনও এমন বড় ঘটনা তাঁর হার্টের ক্ষতি করেনি। তাঁর হার্টের কন্ডিশন খুব ভালো। এঘটনা ভবিষ্যতে তাঁর হার্টের কোনও ক্ষতি করবে না। এঘটনা তাঁর ভবিষ্যত জীবনেও কোনও প্রভাব ফেলবে না। সৌরভ একজন জাতীয় সম্পত্তি। যে কোনও চিকিৎসকই তাঁর সব কাজ ছেড়ে সৌরভের চিকিৎসায় সাহায্য করতে এগিয়ে আসবেন।

সহমতের ভিত্তিতে সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে সৌরভের চিকিত্সা হয়েছে। ভবিষ্যতে হয়তো তাঁর আবার একটা অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করতে হতে পারে। এখন তিনি বাড়ি ফিরতে পারেন ও তাঁর কাজ শুরু করতে পারেন। সৌরভের ঘটনা ভারতের বাস্তব ছবিকে তুলে ধরে। সৌরভ নর্মাল লাইফ লিড করতে পারবেন। এমনকি বিমানেও চড়তে পারবেন। যে কোনও কিছু করার জন্য সৌরভ একদম ফিট। চাইলে ক্রিকেটও খেলতে পারবেন।তাঁর লাইফস্টাইলের সুফল তিনি পেয়েছেন। তাঁর লাইফস্টাইলের জন্যই ধমনীর অত্যন্ত ছোট একটি জায়গায় ব্লকেজ হয়েছিল।

তবে কী থেকে এঘটনা ঘটেছে, তা কারোর পক্ষেই অনুধাবন করা সম্ভব নয়।”আমজনতার সুস্বাস্থ্যের উদ্দেশ্যে দেবি শেঠি বার্তা দেন, “১৫ বছর আগেই এই হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনার কথা জানতে পারা যেত। তাই সবাই বছরে একবার করে মেডিক্যাল চেক-আপ শুরু করে দিন।”




%d bloggers like this: