পশ্চিমবঙ্গে করোনা ভ্যাকসিনের মহড়া,সফটওয়্যারের মাধ্যমে পর্যবেক্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদন: গোটা দেশজুড়েই করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু হল। এর সঙ্গে সঙ্গে রাজ্যেও শুরু হলো ড্রাই রান। দত্তাবাদের আরবান প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র, আমডাঙা এবং মধ্যমগ্রামে এই ‘ড্রাই রান’ হচ্ছে গ্রামীণ হাসপাতালগুলিতে। সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে মহড়া শুরু হয়েছে এই তিন জায়গায়। ২৫ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে ‘ডামি’ বা ‘নকল’ টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলে তথ্যসূত্রে খবর।

যার মধ্যে মধ্যমগ্রামে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে শুরু হয়েছে ‘ড্রাই রান’। উপস্থিত হয়েছেন ২৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী। এই স্বাস্থ্যকর্মীদের মাধ্যমেই শুরু মহড়া হচ্ছে। এই গোটা প্রক্রিয়া কীভাবে চলবে, তা আগেই ঠিক করা হয়েছে। শনিবার বিধাননগরেও পুরনিগমের অধীনে দত্তাবাদ প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং আমডাঙা গ্রামীণ হাসপাতালেও টিকাকরণ প্রক্রিয়ার মহড়া শুরু হয়েছে। করোনার প্রতিষেধক এলে এবং সেটি দেওয়ার সময় কী কী করতে হবে, কী কী চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হতে পারে স্বাস্থ্যদপ্তরকে, সেটি বুঝিয়ে দেওয়া হবে এই মহড়ায়।
করোনার নির্দিষ্ট দূরত্ববিধি মেনেই ওই ২৫ জনকে বসিয়ে রাখা হয়েছে। তাঁদের পরিচয়পত্রও দেখা হচ্ছে। নাম নথিভুক্ত করা হয়েছে প্রত্যেকের। অন্য শারীরিক পরীক্ষাও করা হচ্ছে। ওই স্বাস্থ্যকর্মীদের পাঁচ জন করে এক একটি দলে ভাগ করে তাঁদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তথ্যসূত্রে খবর, একটি সফটওয়্যার অ্যাপের মাধ্যমে গোটা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এতে স্বাস্থ্যকর্মীদের নাম, তাঁদের পরিচয় ইত্যাদি তথ্য ওই সফটওয়্যারের মধ্যে সঞ্চিত থাকবে। টিকা নেওয়ার পরই যিনি সেটি নিচ্ছেন তাঁর কাছে এসএমএস চলে যাবে। টিকার পরবর্তী ডোজ কবে নিতে হবে, সেটাও ওই সফটওয়্যারের মাধ্যমে জানা যাবে।




%d bloggers like this: