স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে জনগনের হয়রানী এড়াতে কড়া বার্তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজ্য সরকারের মেয়াদ শেষ হার আগে ও ভোট প্রাক্কালে তৃনমুল সরকার একের পর এক প্রকল্প ও কর্মসূচী নিয়ে হাজির হয়েছে, মানুষের মাঝে। আবার কিছু প্রকল্প আগে থেকেই ঘোষিত ছিল।
যা নিয়ে তৃনমুল বীরোধি সব রাজনৈতিক দলই এসব প্রকল্পের বাস্তবিক ও কার্য কারিতা নিয়ে একের পর এক তীব্র সমালোচনা করে চলেছে।

ও কিছু ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের প্রকল্পের সুবিধা পেতে সাধারন মানুষ দের হয় হয়রানির শিকার হতে হয়েছে, না হয় কাঠ মানি দিয়ে সুবিধা নিতে হয়েছে।
যাতে বেশ অসস্থীতে শাসক দল।

রাজ্য সরকার তথা মুখ্যমন্ত্রি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিছুদিন আগেই “স্বাস্থ্যসাথী” নামে এক প্রকল্প ঘোষণা করেছে।যাতে বলা হয়েছে রাজ্যের প্রতিটি মানুষ এই কার্ডের মাধমে বিনা খরচে ৫ লক্ষ্য টাকার স্বাস্থ্য বিমার সুবিধা পাবে। আর একদিকে এই প্রকল্প নিয়েও বিরোধীরা সমালোচনার সুর চড়িয়েছে।

পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধীদের হাতে সমালোচনার জন্য কোন অস্ত্রই তুলে দিতে চান না।
আর তাই এ দিন তিনি রাজ্যের সকল হাসাতাল ও নার্সিংহোমের আধিকারকদের নিয়ে ভার্চুয়াল মিটিং করে সকলকে কার্যত কড়া বার্তা দিয়ে বলেন রাজ্যের কোনও মানুষ যেন স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে চিকিৎসা করাতে গেলে হয়রানির স্বীকার না হন। কেউ যদি হয়রানির মুখে পরেন, তবে সংশ্লিষ্ট আধিকারিকের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সুত্রের খবর এই প্রকল্পের তদারকি মুখ্যমন্ত্রী নিজে করছেন। ভোটের আগে মানুষের মন জয়ের কড়া চ্যালেঞ্জ শাসক-বিরোধী উভয় পক্ষের৷ কিন্তু সাধারন মানুষ কাকে খুশী করবে সেটাই সময়ের অপেক্ষা।




%d bloggers like this: