ক্যানিং এ বিজেপির ‘আর নয় অন্যায়’ সভায় বিশৃঙ্খলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, ক্যানিং: বিজেপির ‘আর নয় অন্যায়’ সভায় তুমুল বিশৃঙ্খলা৷ চেয়ার ছোঁড়াছুড়ি, ভাঙচুর, মারধর৷ বিশৃঙ্খলা তৈরি হল ক্যানিংয়ে বিজেপির ‘আর নয় অন্যায়’ প্রতিবাদসভায়। বুধবার সন্ধ্যায় ক্যানিং থানার দিঘিরপাড় পঞ্চায়েতের রায়বাঘিনী মোড় এলাকায় ক্যানিং ১ মণ্ডল বিজেপির ডাকে ‘আর নয় অন্যায়’ কর্মসূচির প্রতিবাদসভা ছিল। সেইমত রায়বাঘিনী মোড়ে সভার মঞ্চ তৈরি হয়। আমন্ত্রণ জানানো হয় ক্যানিং ১ মণ্ডলের সমস্ত বিজেপি নেতানেত্রী ও কর্মী সমর্থকদের। সভার শুরুতেই দক্ষিণ ২৪ পরগনা পূর্ব জেলার মহিলা মোর্চার সহ-সভানেত্রী মায়া বাগের নেতৃত্ব বেশ কিছু মহিলা বিজেপি কর্মী সমর্থক মঞ্চে বসে আর নয় অন্যায় কর্মসূচির প্রতিবাদসভা শুরু করেন।

অভিযোগ, সেই মুহূর্তে ক্যানিং ১ মণ্ডলের সভাপতি তাপস চ্যাটার্জী ও বাপি রায়ের নেতৃত্বে একদল বিজেপি কর্মী সমর্থক মহিলা মোর্চার নেত্রী-সহ অন্যান্য বিজেপি মহিলা কর্মীদের মঞ্চ থেকে জোর করে তাড়িয়ে দেয়। এরপরই শুরু হয় তুমুল বিশৃঙ্খলা। মহিলা মোর্চার সভানেত্রী মায়া বাগ দলের নেতাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়ে প্রতিবাদ করেন। এমনকি প্রকাশ্য রাজপথে বসে পড়েন এই বিজেপি নেত্রী। সেইসময় কিছু বিজেপি কর্মী সমর্থক ও নেতানেত্রীরা পথ অবরোধ ও ধরনা থেকে সরে আসার অনুরোধ করেন তাদের৷ তবে মহিলা মোর্চার নেত্রী তাতে কোনও প্রকার কান না দিয়ে প্রতিবাদ চালিয়ে যেতে থাকেন। যার জেরে বন্ধ হয়ে যায় সভার কাজ।

যদিও এ বিষয়ে অস্বীকার করে বিজেপির ক্যানিং-১ মন্ডল কমিটির সভাপতি তাপস চ্যাটার্জী৷ তিনি বলেন, এখানে ‘আর নয় অন্যায় সভাটি’ যাতে বন্ধ হয় তার জন্য বেশ কিছু তৃণমূলের আশ্রিত দুষ্কৃতিরা দলের কিছু কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে আঁতাত করে মিলিত ভাবে সভাটা পন্ড করার চেষ্টা করেছিল। সেটা হয় নি৷

ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে ক্যানিং থানার পুলিস৷ পুলিশ পৌঁছে সামাল দেয় পরিস্থিতি৷ এই ঘটনায় রীতিমত অস্বস্তিতে পড়েছে গেরুয়া শিবির৷ তৃণমূলের বিরুদ্ধে আর নয় অন্যায়ের স্লোগান তুলে সভা করে সেখানে নিজেরাই অন্যায় কাজ করে ফেলছেন না তো৷ প্রশ্ন তুলছে আমজনতা৷




%d bloggers like this: