অধ্যাপকের সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ তাঁ বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে

সেখ নুরুদ্দিন, যাদবপুর: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, ভূ বিজ্ঞানী ডঃ বাবর আলী শাহর সম্পত্তি বলপূর্বক দখলের অভিযোগ তাঁর বাবা ও মায়ের বিরুদ্ধে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের জনপ্রিয়, ছাত্র দরদী অধ্যাপক তথা বিশিষ্ট ভূবিজ্ঞানী ডঃ বাবর আলী শাহ অভিযোগ করলেন তারই বহু কষ্টার্জিত উপার্জনের থেকে ক্রীত সম্পত্তি বলপূর্বক দখল করে উপভোগ করছে তাঁর বাবা মহম্মদ আলি শাহ ও মা দিলওয়ারা বেগম ও বোনপো সেখ মনসুর আলী।

অভিযোগ, এই সম্পত্তি বলপূর্বক দখল করতে সহায়তা করছেন স্থানীয় মানুষ বা বলা ভালো রাজনৈতিক গুণ্ডা। তাদের মদতে নীরবতা পালন করছে প্রশাসন। জানা গিয়েছে, ৩রা মার্চ ২০১৯ লোকাল থানায় অভিযোগ করেন। ২২ শে এপ্রিল বর্ধমান জেলার সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পরিতাপের বিষয় শুধুমাত্র অভিযোগ গ্ৰহন করেছেন কিন্তু উক্ত বিষয়ে হস্তক্ষেপ করেননি কিংবা সুরাহার ইঙ্গিত এখনো পর্যন্ত দেওয়া হয়নি।

বাপ -মায়ের বিরুদ্ধে এমন গুরুতর অভিযোগের কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে জানতে পারি ২০০৪ সালে বর্ধমান সদর, ভাঙ্গাকুঠি, রাজবাটির -খাগড়াগড়ে ৩কাঠা ১৪ ছটাক জায়গা কিনে প্রায় ৬০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করেন বাড়ি। অভিযোগ, সেই বাড়িতে বলপূর্বক পিতা মহম্মদ আলি শাহ ওনার মেয়ের গুলনুর বেগম) ছেলে সেখ মনসুর আলী স্বপরিবারে দখল করে আছে। ডঃ বাবর আলী শাহ দুঃখ ও ক্ষোভের সঙ্গে জানান জন্ম ছাড়া তার পিতা ও মাতা কোনো দায়িত্ব পালন করেন নি তাঁর প্রতি। শৈশবে বাৎসল্য স্নেহ সুখ থেকে বঞ্চিত তিনি। বর্তমানে শারীরিক অসুস্থ ও মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত তিনি।

১৬ ই জানুয়ারি ২০১৮ সালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে এসএসকেএমে এ ভর্তি হয়েছিলেন। এখনো চিকিৎসাধীন। ওনার পৈতৃক সম্পত্তি থেকে সম্পূর্ণ বঞ্চিত করে বেআইনি ভাবে দখল করে ভোগ করছেন। উনি অনেক প্রতিবন্ধকতা জয় করে, বঞ্চনা পেয়ে বর্তমানে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হিসেবে স্বকৃতিত্বে বিরাজমান। ওনার মাতৃকুলীয় দাদু শিক্ষক রউফ আলী শাহ ওনাকে লালন পালন করেছেন ও জীবনে এগিয়ে চলার অনুপ্রেরণা জুগিয়েছিলেন। সেকারণে দাদুর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। পরবর্তীতে দাদুর নামে শিক্ষা প্রসারে ট্রাস্ট গড়তে চান বলে জানান। পারিবারিক এই সমস্যা সমাধানের জন্য বারংবার প্রশাসনকে সাহায্যের আর্তি জানিয়েও কোন সুরাহা হয়নি। রীতিমতো প্রতিপক্ষের থেকে জীবননাশের হুঙ্কার দেওয়া হচ্ছে। নিরপত্তাহীনতায় আতঙ্কে ভুগছেন অকৃতদার ডঃ বাবর আলী শাহ।




%d bloggers like this: