রাতে স্ত্রীকে মারধর , সকালে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

বাবলুপ্রামানিক ,দক্ষিণ 24পরগনা : পাথর প্রতিমার ঢোলাহাট দিগম্বর পুর উত্তর পাড়া এলাকায় রাতের অন্ধকারে স্ত্রীকে মারধর করে। তারপর গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করল এক ব্যক্তি । নাম গোবিন্দ পাত্র (৫১)স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে গোবিন্দ পাত্রের স্ত্রী,ও দুই ছেলে দুই মেয়েকে নিয়ে দিল্লিতে কাজ করতো।

বাড়িতে একাই থাকতো এই গোবিন্দ পাত্র,
গত তিন মাস আগেই স্ত্রী এবং ১ ছেলে ১ মেয়েক বাড়ি ফিরে আসে।কিছুদিন পরের থেকে স্ত্রীর উপরে অত্যাচার শুরু করে এ গোবিন্দ পাত্র। গতকাল রাত্রে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে স্ত্রী অলকা পাএ(৪৩) কে প্রচণ্ড মারধর করে।

রক্তাক্ত স্ত্রীকে অচৈতন্য অবস্থায় বস্তার মধ্যে ঢুকিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে যায় গোবিন্দ বাবু। তারপর গোবিন্দ বাবুছেলে রাত্রিতে বাড়ি ফিরে মাকে না দেখতে পেয়ে বাড়িতে খোঁজাখুঁজি করে মেঝেতে রক্ত দেখে সন্দেহ হয়। পরে খাটের তলায় দেখতে পায় বস্তা,তার মধ্য থেকেই মাকে বার করে গদামথুরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসে।

তারপর বাড়ি এসে বাবাকে খোঁজাখুঁজি করে রাত্রে,কিন্তু কোনো হদিশ না পেয়ে হাসপাতালে মায়ের কাছে থাকে গোবিন্দবাবুর ছেলে। রাতের অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক তার মাকে ডায়মন্ডহারবারে স্থানান্তরিত করে।

সকালে খবর পায় গোবিন্দ বাবুর ছেলে ইন্দ্র নারায়নপুর মাঝের পাড়ায় একটি গাছে তার বাবা গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলছে । খবর দেওয়া হয় ঢোলাহাট থানায়, প্রশাসনের লোকজন এসে গদামথুরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করে।




%d bloggers like this: