জঙ্গলের পরিত্যাক্ত কুয়ো থেকে মহিলার পঁচা গলা মৃত দেহ উদ্ধার

পশ্চিম বর্ধমান : আসানসোল শিল্পাঞ্চলের বন্ধ থাকা হিন্দুস্থান কেবলস কারখানার জঙ্গলের ভেতরে পরিত্যক্ত কুয়ো থেকে বৃহস্পতিবার সকালে বছর ২৬ এর এক পচা গলা মহিলার দেহ উদ্ধার হওয়ার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। জানা গেছে মৃত মহিলার নাম মঙ্গলি টুডু। তার বাড়ি সালানপুর থানার অন্তর্গত জিৎপুর পাঞ্চয়েতের ভাদোলা গ্রামে।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র থেকে জানা যায়, হিন্দুস্থান কেবলস কারখানার ভেতরের জঙ্গলে গ্রামের মহিলারা জ্বালানির কাঠ কাটতে গিয়েছিল জঙ্গলের মধ্যে সেখানে একটি পরিত্যক্ত বড় কুয়ো থেকে ভয়ংকর দুর্গন্ধ পায় ও কাছে গিয়ে তারা এক মহিলার মৃতদেহ ভাসতে দেখে। সেই খবর গ্রামবাসীদে জানাতে ছুটে আসে গ্রামের মানুষজন। খবর দেওয়া হয় রূপনারায়নপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ সিকান্দর আলমকে। খবর পেয়ে পুলিশ ও ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এর উপস্থিতিতে স্থানীয় কিছু যুবকের সহায়তায় মহিলার মৃত দেহ উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য আসানসোল জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
ঘটনার সম্পর্কে মৃতা মহিলার বাবা বুধন টুডু জানিয়েছে যে, তার মেয়ে মঙ্গলি টুডুর ছয় বছর আগে টাবাডি গ্রামের বলদেব বাসকি নামের এক যুবকের সাথে প্রেম করে বিয়ে হয়েছিল। তার একটি ৫ বছরের ছেলেও রয়েছে। তবে জানা যায়, ওই যুবকের আগে থেকেই ঝাড়খন্ডে আরেকটি বিবাহিত স্ত্রী আছে। এই ঘটনা মেয়ে জানতে পাড়ার পরথেকেই ওই দম্পতির মধ্যে অশান্তি লেগে থাকত। যার জন্যে মেয়েটি আমার কাছেই থাকত, তবে নাতি তার বাবার কাছে থাকত।কিন্তু হঠাৎ ১৪ দিন আগে বলদেব বাসকি তার মেয়েকে রাত্রি ৯ টার সময় ছেলের শরীর খারাপ বলে
ফোন করে ডেকে নিয়ে যায়। তবে সেই দিনের পর থেকে মেয়েকে ফোন করলেও ফোনে পাওয়া যায়নি। তাছাড়া মেয়ে-জামাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বলে, আমি জানি না কোথায় গেছে। আমরা বিভিন্ন জায়গায় এবং আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে খোঁজ খবর করি। মেয়ের বাবা জানান, থানায় মেয়ের নিখোঁজ সম্পর্কিত কোন অভিযোগ এতদিন দায়ের করেননি। তবে মৃতার বাবার অভিযোগ যে, তার মেয়েকে হত্যা করে কুয়োয় ফেলেছে জামাই বলদেব বাসকি। তবে ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মৃতার স্বামী বলদেব বাসকি কে আটক করেছে পুলিশ। ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ অনমিত্র দাস জানান, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে মহিলার দেহ উদ্ধার করেছে এবং ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে ।




%d bloggers like this: