চাঁদ তো সবাই দেখি, জানেন কি চাঁদের এই রহস্য ?

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্কঃ খোলা আকাশে চাঁদ আমরা প্রতিনিয়তই দেখি ৷ শিশুদের বুঝিয়ে ঘুম পাড়াতে চাঁদমামার বিকল্প আর কেউ নেই ৷ আবার কবিতা কিংবা সাহিত্যে এই চাঁদমামা রোমান্সের একটা জলজ্যান্ত ঐতিহ্য ৷ চাঁদকে নিয়ে আমাদের কৌতুহলের পাশাপাশি বিজ্ঞানীদের ও কৌতুহলের শেষ নেই ৷ তাই মার্কিন মহাকাশ গবেষনা সংস্থা নাসার সাথে পাল্লা দিয়ে অন্য দেশও চাঁদে পাঠিয়েছে তাদের যান ৷ চাঁদকে দেখেছে একদম চাঁদের মাটিতেই দাড়িয়ে ৷ ভারতের চন্দ্রযান এখন চন্দ্র বিজয়ের পথে ৷ এবার আসুন দেখে নেই কি আছে চাঁদে ৷
সূত্রমতে একদল গবেষকদের দাবী চাঁদে কয়েক মিলিয়ন বছর আগে প্রানের অস্তিত্ব থাকতে পারে বা প্রানের অনুকুল কোনো পরিবেশ তৈরী হয়েছিলো ৷ আর একদল গবেষকদের কথায়,চাঁদে কখনই প্রানের অস্তিতের সম্ভাবনা নেই ৷ বিজ্ঞানীরা বলছেন,কয়েক বিলিয়ন বছর আগে চাঁদে অগ্ন্যুৎপাত ঘটতো ৷ সেই সূত্র ধরেই চাঁদে প্রাণের অস্তিত্ব ছিলো এমন একটি অনুমাননির্ভর মতামত প্রকাশ করেন। চাঁদে প্রাণ থাকার পর্যায়কে বিজ্ঞানীরা মোটামুটি দুই ভাগে ভাগ করেন। একটি পর্যায় ছিল চাঁদের জম্মকালীন সময় ৪ বিলিয়ন বছর আগে এবং আরেকটি পর্যায় হচ্ছে ৩.৫ বিলিয়ন আগে । এই দুই সময়ের মধ্যে চাঁদে প্রাণ থাকার সম্ভাবনা অত্যন্ত দৃঢ়। ২০০৮ সালে একদল বিজ্ঞানী দাবী করেন চাঁদের থেকে যে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে তাতে পানির অস্তিত্ব বিদ্যমান ৷ তবে সেটি এত কম যে ,এর থেকে বোঝা যায় কয়েক বিলিয়ন বছর আগে হয়তো তেমনটা ঘটে থাকতে পারে ৷
বিজ্ঞানীদের এই জীবন থাকার ধারনা ভূল প্রমানিত হয় যখন চাঁদের থেকে প্রাপ্ত বিভিন্ন নমুনা বিশ্লেষন করে দেখা হয় ৷ এ্যামাইনো এসিড,অক্সিজেন এবং আরো কিছু রাসায়নিক উপাদান চাঁদে পাওয়া যায়নি।
কেউ মনে করছে চাঁদের অন্ধকার মেরু অংশে হয়তো
লুকিয়ে আছে রহস্য ৷ হয়তো সেখানে থাকতে পারে মানুষের থেকে বুদ্ধিমান কোনো প্রানী বা এলিয়েন ৷ দেখা যাক ভারতের চন্দ্রযান-২ চাঁদের সেই রহস্যময়তা খুঁজে কতটুকু সামনে আনতে পারে ৷




%d bloggers like this: