‘কথা বলতে তৈরি তবে আগে CAA প্রত্যাহার করুন’, নরেন্দ্র মোদিকে বললেন মমতা ব্যানার্জি


মো:জিয়ারুল ইসলাম, এসপ্লাস নিউজ, কলকাতা:
নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে অভিনব প্রতিবাদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির। মঙ্গলবার ধর্মতলায় গান্ধীমূর্তির পাদদেশে CAA, NRC ও NPR-এর বিরোধিতায় ছবি এঁকে প্রতিবাদ জানাতে শামিল হয়েছিলেন শিল্পীরা। তাঁদের সঙ্গেই যোগ দেন তৃণমূল নেত্রীও। ক্যানভাসে তাঁর তুলি নীরবেই গর্জে ওঠে CAA-র বিরুদ্ধে। সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে মমতা বলেন, এখানে শিল্পীরা কথা না বলে তুলির টানে প্রাণের ভাষা বহির্প্রকাশ করছেন। গান্ধী মূর্তির জায়গাটা বেছে নেওয়ায় একটি গুরুত্বপূর্ণ বার্তা রয়েছে। গান্ধীজি দেশের একতার জন্য লড়েছেন। আমরা অন্যায় আবদার মানব না।”

ছবিটি আঁকার পর মমতা বলেন, “প্রাণের টানে, রঙের টানে, তুলির টানে প্রতিবাদ করতে এসেছি। মানুষে মানুষে বিভাজন করার আইন চলবে না। নো ক্যা, নো এনআরসি, নো এনপিআর। নীরবেও প্রতিবাদ জানানো যায়। সেটাই করলাম ছবি এঁকে।” এরপর মোদি সরকারকে একহাত নিয়ে মমতার তোপ, “বিরোধীরা কিছু বললেই দেশদ্রোহী। আসলে ওরাই পাকিস্তানকে গৌরবান্বিত করছে। বিজেপি নেতাদের পাকিস্তানের দূত বলে কটাক্ষ তৃণমূল সুপ্রিমোর। এটা ভালো যে প্রধানমন্ত্রী কথা বলতে চান। যদি প্রধানমন্ত্রী আলোচনা চান, আগে সিএএ-এনআরসি প্রত্যাহার করুন। গণতন্ত্রে কথা হতেই পারে কিন্তু আগে প্রত্যাহার করতে হবে সিএএ-এনআরসি।

গতকাল বিধানসভায় সিএএ বিরোধী প্রস্তাবনা পাস করে রাজ্য সরকার। কেরালা, পঞ্জাবের পর পশ্চিমবঙ্গ সিএএ নিয়ে তাদের অবস্থান স্পষ্ট করে দেয়। পাশাপাশি এনপিআর কার্যকর করা হবে না বলে জানিয়েছেন মমতা। একই পথে হাঁটতে অন্যান্য অবিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিকেও অনুরোধ করেছেন তিনি। তবে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী, যিনি এঁকে সিএএ বিরোধিতা করলেন।




%d bloggers like this: